Type to search

সমসাময়িক

ভালোবাসারেও আমরা ”খেয়ে ছেড়ে দিই”

কয়দিন আগে আমার এক বান্ধবী আমাকে বলে, ওরা কয়েকজন ফ্রেন্ড দিয়াবাড়ি আসবে, আমি যাতে থাকি। তো নির্দিষ্ট দিনে গিয়ে দেখলাম তারা তিনজন। আমার সেই বান্ধবি, সাথে তার আরেক বান্ধবি আর তারই আরেক ছেলে ফ্রেন্ড। ব্যাপার হলো আমার সেই বান্ধবি চাইতেছে তার মেয়ে ফ্রেন্ডটার সাথে তার ছেলে ফ্রেন্ডটার রিলেসন হোক, এই জন্যে সে তাদের দুইজনরে নিয়ে ঘুরতে আসছে!

বিষয়টা আমার কাছে অদ্ভুত লাগলো। তার উপর আবার আবার ফ্রেন্ডের ফ্রেন্ড, সেই মেযেটাকেও যথেষ্ট লাজুক প্রকৃতির মনে হলো। তুলনামূলক ছেলেটাকে দেখলেই ‘লোক বিশেষ সুবিধার না’ টাইপ একটা ধারণা হয়। আমি আমার ফ্রেন্ডরে বললাম,

– ওদের কি প্রেম চলতেছে?
– না।
– মেয়েটারে দেখে মনে হচ্ছে সে রাজি না।
– সেইরকমই।
– তো তুমি জোর করতেছো কেন?
– আসলে মেয়েটা ছ্যাঁকা খেয়ে মানসিক ভাবে ভালো নাই তাই!
– তোমার কি ধারনা প্রেম করলে সে ঠিক হবে?
– হতে তো পারে।
– কিন্তু এই প্রেম থেকেও যদি কষ্টই পায়, তখন? কিংবা ধরো আবারও ছ্যাঁকা খাইলো, তখন?

কথোপকথন এরকম ছিলো আরকি। তো মেক্সিমাম আমরাই এই ভুল করি। একটা প্রেম ভাঙ্গলে মনে হয়, একমাত্র আরেকটা প্রেমই পারে এখন রক্ষা করতে। এ ক্ষেত্রে দ্বিতীয় প্রেমটা হয় কেবল ওভারকাম করার জন্যে। এতে ভালোবাসা তো থাকেই না, কেবল পাশের মানুষটাকে ধোঁকা দেয়া। তার ভালোবাসা ব্যবহার করে নিজেরে ঠিক করা!
…হায়, ভালোবাসারেও আমরা খেয়ে ছেড়ে দিই!

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *