Type to search

গল্প

ত্রিসংশয়ের প্রেম

লাইট ক্যামেরার সামনে অনেকদিন ধরে একটা প্রেমের গল্পে অভিনয় করতে করতে আমাদের মাঝেও কিছু একটা হয়ে যায়। অভিনয়ের বাহিরেও কাছে পাবার আকুতি, হাত ধরার বাহানায় বারবার এনজি শর্ট, চোখে চোখ পড়তে বুকের ভেতর কোথায়ও একটা মোচড় দেওয়া- এসবই কি প্রেম? হয়তো…

ফিফটি লেন্স এর ক্যামেরা, পরিচালকের চোরাচোখ, অগনিত আগ্রহি দর্শকের মাঝে আমরা অভিনয় করে যাই। একটা ছোট্ট দৃশ্য। আমি তার হাত ধরে রাস্তা পার করে দিবো। পাহাড়ি রাস্তা। পেঁছনে শরৎের নির্মল আকাশ। ক্যামেরা আর সাজানো কথনের মাঝে ব্যাক্তিগত আবেগ মাথাছাড়া দিয়ে উঠা বিরাট সামর্থের ব্যাপার। একটা শর্ট ভুল হলে আমরা হাসাহাসি করি। হাসাহাসি ছলে কিংবা হাসির ছোটেই সে আমার গায়ে ঢলে পড়ে। নায়িকা, এটা কি কোন অভিনয়? বাস্তব কিংবা নিতান্তই অনিচ্ছা শর্তে এক সুন্দর কাকতালীয়? জানিনা…

এইসব প্রেমের স্ক্রিপ্টকে বাস্তব করে তুলতে তুলতে আমরা দুই চরিত্রই যেনো কোন এক জীবন পৃষ্ঠায় নতুন মাত্রা আনি। খুব দূরের ওই পরিষ্কার আকাশের ওপাশ থেকে কেউ একজন কি একটা স্ক্রিপ্ট লিখে চলছেন না? তার স্ক্রিপ্টে এই শহস্র মিলিয়ন বিলিয়ন অভিনেতা অভিনেত্রীর মাঝে আমি আর সেও দুজন। তার স্ক্রিপ্টে একটা নতুন গল্প কি মোড় নিতে চলেছে? নিতান্ত গোবেচারা গোঁছের এক মামুলী অভিনেতার সঙ্গে এক সুপারস্টার মডেলের গল্প। দেখা যাক…

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *