Type to search

সমসাময়িক

কলগার্ল সম্পর্কে একটা বেহিসেবী আগ্রহ

বিভিন্ন পেজের কমেন্টসে দেখা যায় নারী আইডি থেকে কমেন্টসে ফোন নাম্বার দিয়া ফোনসেক্স করার জন্যে কল দেয়ার আহব্বান করা হয়। সত্যিবলতে এই জাতীয় কমেন্টস দেখলে আমার ইচ্ছে করে কল দিয়ে কিছুক্ষণ গল্প করি! আমার মাঝে ঠিক কামবোধ নয়, বরং যেই মানুষটা ফোন সেক্সের আবেদন জানায় তার সম্পর্কে একটা আগ্রহ জন্মে। সে সকালে খাইছে কিনা, খেলে কি দিয়া ভাত খাইছে, তার প্রিয় রঙ কি- এই জাতীয় আগ্রহ জন্মে।

কখনো কল দেয়ার সাহস হয়না এই ভেবে যে, মানুষটা যদি আমারে চিনে ফেলে। এই ধারনাটা পুরোপুরি অমূলক, আমি এমন কেউনা যে আমারে চিনবে। তাও আমার মনে হয় কিছুক্ষণ কথা বললে অপজিটের মানুষটা বলবে, ‘আপনার কন্ঠ পরিচিত লাগে, আপনি না আগে রেডিও উত্তরায় ছিলেন?’

এই নাম্বার দেয়া ফেইক আইডিগুলার প্রোফাইলে যাই আমি। ফুলের ছবি, পুতুলের ছবি, কারোও বা পুকুরের পানিতে ডুবানো পায়ের ছবি। এইযে একেটা ফেইক প্রোফাইল, তার পেছনে তো অর্থ উপাজর্নের উদ্দেশ্যে একজন মানুষই থাকে। হইতে পারে সে পুরুষ, নারী কন্ঠে কথা বলে। হইতে পারে সে নারীই, রোজ চর্চা করে যৌনতার!

তার শরিরের প্রতি না, যৌন উত্তেজক কথাবার্তায় না, শুধু মানুষগুলোর প্রতি আমার আগ্রহ জন্মে অনেক! জিজ্ঞেস করতে ইচ্ছে করে ছোট বেলায় বড় হয়ে কি হবার ইচ্ছে ছিলো তার; কিংবা তার বাবা কোনদিন তারে কাধে তুলে বাজারে ঘুরাইছে কিনা এই জাতীয় কথাবার্তা!

শেয়ার করুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *